মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ ২০২৪, ০৭:৫৭ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
মানবকল্যাণ ফোরাম এর ৩য় বর্ষপূর্তি অনুষ্ঠিত ঈশ্বরগঞ্জে ইনোসেন্ট চাইল্ড স্কুলের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত প্রতারকচক্র ঠেকাতে ভাতা ভোগীদের নিয়ে সচেতনতামূলক সভা উচাখিলা বাজার ব্যবসায়ী কমিটি, সভাপতি সাইফুল সম্পাদক মিজানুর বর্ণাঢ্য আয়োজনে ঈশ্বরগঞ্জে পরিসংখ্যান দিবস উদযাপন ঈশ্বরগঞ্জে মামলা প্রত্যাহার ও মাদক ব্যবসায়ীদের গ্রেফতারের দাবিতে মানববন্ধন ৭ হাজার ভাষার মধ্যে পৃথিবীতে বাংলার অবস্থান কত ঈশ্বরগঞ্জের নতুন ইউএনও প্রিন্স, সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় ঈশ্বরগঞ্জে জমকালো আয়োজনে ‘ঢালাই স্পেশাল সিমেন্ট’র শুভযাত্রা ঈশ্বরগঞ্জে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় ঠেকাতে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান

জি কে শামীমসহ ৮ জনের মামলার রায় আজ

অবারিত বাংলা ডেস্ক
  • আপডেট : রবিবার, ২৫ জুন, ২০২৩
  • ১৬১ বার পড়া হয়েছে
ছবি - ইন্টারনেট

রাজধানীর গুলশান থানার মানিলন্ডারিং আইনের মামলায় কথিত যুবলীগ নেতা এস এম গোলাম কিবরিয়া শামীম ওরফে জি কে শামীমসহ আটজনের রায় আজ রোববার হবে।

ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-১০ এর বিচারক মোহাম্মদ নজরুল ইসলামের আদালত এ রায় ঘোষণা করবেন।

গত ১৫ জুন রাষ্ট্রপক্ষ ও আসামিপক্ষের যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে আদালত রায়ের এ তারিখ ধার্য করেন।

মামলার অপর আসামি হলেন মো: দেলোয়ার হোসেন, মো: মোরাদ হোসেন, মো: জাহিদুল ইসলাম, মো: শহীদুল ইসলাম, মো: কামাল হোসেন, মো: সামসাদ হোসেন ও মো: আনিছুল ইসলাম। শুনানিকালে আসামিদের কারাগারে থেকে আদালত হাজির করা হয়।

রায়ে আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণে সক্ষম হয়েছেন মর্মে সর্বোচ্চ সাজা প্রত্যাশা করছেন রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী আজাদ রহমান। তবে আসামিপক্ষ বলছে, রাষ্ট্রপক্ষ আসামিদের বিরুদ্ধ অভিযোগ প্রমাণ করতে পারেনি। কাজেই তারা খালাস পাবেন।

গত ২৬ জানুয়ারি রাষ্ট্রপক্ষ যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শুরু করে। ৬ মার্চ শেষ করে। রাষ্ট্রপক্ষ আসামিদের সর্বোচ্চ সাজা ১২ বছরের কারাদণ্ড প্রত্যাশা করে।

এর আগে ১৭ জানুয়ারি আত্মপক্ষ শুনানিতে আসামিরা নিজেদের নির্দোষ দাবি করে ন্যায়বিচার প্রার্থণা করেন।

গত ২১ ডিসেম্বর মামলাটির সাক্ষ্যগ্রহণ শেষ হয়। মামলাটিতে চার্জশিটভুক্ত ২৬ জন সাক্ষীর মধ্যে ২৩ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ করেন আদালত।

২০১৯ সালের ২০ সেপ্টেম্বর দুপুরে নিকেতনের নিজ বাসা থেকে শামীমকে আটক করা হয়। এ সময় জি কে শামীমের কাছ থেকে প্রায় ২০০ কোটি টাকার এফডিআর চেকসহ বিপুল পরিমাণ দেশী-বিদেশঅ টাকা জব্দ করা হয়। এ সময় তার কাছ থেকে একটি অস্ত্রও পাওয়া যায়।

এ ঘটনার পর র‌্যাব-১ এর নায়েব সুবেদার মিজানুর রহমান ২১ সেপ্টেম্বর গুলশান থানায় মামলাটি দায়ের করেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সিআইডির সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার আবু সাঈদ তদন্ত শেষে ২০২০ সালের ৪ আগস্ট আদালতে জিকে শামীম ও তার সাত দেহরক্ষীর বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করেন। ২০২০ সালের ১০ নভেম্বর আসামিদের বিরুদ্ধে চার্জ গঠন করে বিচার শুরুর আদেশ দেন।

Please Share This Post in Your Social Media

আরও পড়ুন